লিঙ্কডইন কি এবং প্রোফাইল কি কিভাবে তৈরি করবেন।

history of linkeDin

লিঙ্কডইন কি?

লিংকডইন: প্রফেশনালদের সোস্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম

একবিংশ শতাব্দীর এই যুগে এসে লিংকডইন (LinkedIn) সম্পর্কে জানে না এমন ব্যক্তি খুব কমই আছে। সোস্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম হিসেবে ফেসবুক যেমন সর্ব সাধারণের কাছে জনপ্রিয়; লিংকডইন ঠিক ততটাই প্রফেশনাল ব্যক্তিদের কাছে জনপ্রিয়। আপনি জেনে অবাক হবেন, বর্তমান সময়ে ব্যাপক ব্যবহৃত সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ( যেমন: ইউটিউব, ফেসবুক এবং টুইটার) ইত্যাদির আগে লিংকডইন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

লিংকডইন হচ্ছে এমন একটি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট যেটা কিনা শুধুমাত্র প্রফেশনাল ব্যক্তিদের জন্যই ডিজাইন করা সবচেয়ে বড় কমিউনিটি। যেখানে ব্যবসায়িক ও কর্মসংস্থান ভিত্তিক সার্ভিস আদান-প্রদান করা হয়। এই প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে অতি সহজেই আপনি বিশ্বের অন্য যেকোনো প্রফেশনাল ব্যক্তিদের সাথে আপনার নেটওয়ার্ক গড়ে তুলতে পারবেন।

প্রফেশনাল আইডেন্টিটিকে আরো সমৃদ্ধ করার ক্ষেত্রে লিংকডইন আপনাকে সর্বোচ্চ সহায়তা করতে পারে। মূলত ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান লিংকডইন ব্যবহার করে নিজেদের প্রডাক্ট বা সার্ভিসের প্রচার ও প্রসার করে থাকেন। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানের জন্য ট্যালেন্ডেড কর্মী খুজে থাকে। অপরদিকে যারা স্টুডেন্ট তারা লিংকডইনের মাধ্যমে ইন্টার্ন বা জব খুঁজে থাকেন। স্টুডেন্ট ছাড়াও অনেকে প্রতিনিয়ত নতুন ও ভালো জবের আশায় নিয়মিত লিংকডইন ব্যবহার করে থাকেন।

লিংকডইনের পেছনের ইতিহাস

যেই সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ে তোলপাড় এখন সারা দুনিয়ায়, চলুন জেনে নেয়া যাক আজকের এই লিংকডইনের অতীতের কিছু কথা –

লিংকডইন হচ্ছে একটি আমেরিকান ব্যবসায়িক এবং কর্মসংস্থান ভিত্তিক সার্ভিস যেটা কিনা মাইক্রোসফট এর অধীনস্ত সামাজিক যোগাযোগের একটি মাধ্যম। এর প্রতিষ্ঠাতা হচ্ছে রেইড হফম্যান যিনি কিনা ২০০২ সালের ২৮ ডিসেম্বর লিংকডইন প্রতিষ্ঠা করেন এবং ২০০৩ সালের ৫ই মে এটি আনুষ্ঠানিক ভাবে উন্মুক্ত হয়।

বর্তমানে লিংকডইন এর সিইও হচ্ছেন জেফ উইনার এবং এর সদরদপ্তর হচ্ছে মাউন্টেইন ভিউ, ক্যালিফোর্নিয়া, যুক্তরাষ্ট্র। এই প্ল্যাটফর্মটি বর্তমানে চব্বিশটি ভাষায় ব্যবহার করা যায়। ২০২০ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, লিঙ্কডইনে বর্তমানে ছয়শ দশ মিলিয়নেরও বেশি সদস্য রয়েছে এবং নেটওয়ার্কটিতে তিনশ তিন মিলিয়ন সক্রিয় মাসিক ব্যবহারকারী রয়েছে, যার শতকরা চল্লিশ ভাগ প্রতিদিন সাইটটি ভিজিট করে।

তো এই পরিসংখ্যান থেকে বোঝাই যাচ্ছে যে, লিংকডইন ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রতিনিয়ত বেড়েই চলছে। এই মুহূর্তে আপনার যদি একটি লিংকডইন প্রোফাইল না থেকে থাকে, তবে আর দেরি না করে এখনি একটি অ্যাকাউন্ট খুলে সাজিয়ে নিন আপনার প্রোফাইলটিকে।

লিংকডইন টেকনোলজি স্ট্যাক:

যেই লিংকডইন নিয়ে এত কথা !!!  আমরা কি কখনো ভেবে দেখেছি এই প্ল্যাটফর্মটি কিভাবে তৈরি হয়েছে ? তো চলুন জেনে নেয়া যাক-

মূলত যেকোনো সাইট তৈরি করতে অনেক ল্যাঙ্গুয়েজের সমন্বয় লাগে। ঠিক তেমন ভাবেই লিংকডইন এর ফ্রন্ট-এন্ড এর জন্য ব্যবহার হয়েছে জাভাস্ক্রিপ্ট, ব্যাক-এন্ড ডেভেলপ করা হয়েছে জাভা, স্কালা এবং জাভাস্ক্রিপ্ট দিয়ে। আর এখানে তথ্য সংরক্ষণের জন্য ব্যবহৃত ডাটাবেজ হচ্ছে ভলডেমর্ট (Voldemort) যা লিংকডইনের ডেভেলপ করা।

অনেকের কাছে ভলডেমর্ট এই নামটি শোনা মাত্রই কোনো এক ভিলেন ক্যারেক্টার এর কথা মনে পড়তে পারে।জী, হ্যাঁ ! মনে পরারই কথা। কেননা এর নামকরণ করা হয়েছে কাল্পনিক হ্যারি পটার উপন্যাসের ভিলেন লর্ড ভলডেমর্টের নামে।

আসলে আমরা এখন একটা টেকনোলজি এর যুগের মধ্যে বসবাস করছি । আমাদের আপনি খ্যাল করলেই দেখবেন টেকনোলজি এখন আপনার ৬ষ্ঠ বেসিক নিড হয়ে যাচ্ছে । আমাদের কাজকর্ম , ডেইলি জীবনযাপন সব কিছু আমরা টেকনোলজিতে আপডেট করছি । মোট কথা , টেকনোলজি আমাদের জীবনকে সুবিধা করে দিয়েছে। আর টেকনোলজি এর সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে কমিউনিকেশন । পৃথিবীর সাথে যোগাযোগ । তার জন্য সোসাইল মিডিয়া থেকে আর ভাল কিছু হয় নাহ । ত আজকে আমাদের আলোচ্য বিষয় লিঙ্কডইন প্রোফাইল । বর্তমানে প্রফেশনালদের সবচেয়ে বড় সংযোগস্থল হচ্ছে লিঙ্কডইন। আপনি কখনো লিঙ্কডইন ব্যবহার করেননি। তাই, লিঙ্কডইন ছাড়াই আপনার চলবে, এটা ভাবা বোকার মত হবে। অন্যরা কিন্তু ঠিকই এগিয়ে যাচ্ছে। উইকি পিডিয়া বলছে, ২০১৫ সালে লিঙ্কডইন ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ৪০০ মিলিয়ন। তাহলে, আপনি পিছিয়ে থাকবেন কেন? চলুন ঘুরে আসি লিঙ্কডইনের জগত থেকে, জেনে নেই কিভাবে লিঙ্কডইন আপনাকে চাকরীর বাজারে এগিয়ে রাখবে।

আসুন জেনে নেই কিভাবে এই সাইটে প্রোফাইল তৈরি করতে হয়,

প্রফেশনাল প্রোফাইল ইমেজ ব্যবহার করুন

যেহেতু এটি অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে ভিন্ন এবং প্রফেশনাল, তাই এখানকার প্রোফাইলে এমন ইমেজ ব্যবহার করুন, যাতে আপনার ব্যাক্তিত্ব ফুটে উঠে এবং আপনার সম্পর্কে কোন বাজে ধারনা যেন না হয় অন্যদের মনে। বন্ধুদের সাথে সমুদ্রস্নানে গেছেন, এমন ইমেজ ফেইসবুকে দেয়া যায়, কিন্তু লিঙ্কডইনে ভুল করেও সেই ইমেজ ব্যবহার করবেন না যেন কখনো। unprofessional image ব্যাবহার করা মানেই হল আপনার reputation হারানো।

আপনার প্রোফাইল পিকটি ঠিক এরকমই হওয়া উচিত, মার্জিত ও রুচিসম্পন্ন

No alt text provided for this image

আকর্ষনীয় হেডলাইন ব্যবহার করুন

আপনার লিঙ্কডিন প্রোফাইলের হেডলাইনটি অত্যন্ত জরুরী, কারণ হেডলাইন দেখেই কিন্তু আপনাকে অন্যরা খুঁজে নেবে। তাই এমন হেডলাইন লিখুন, যা আপনার পেশা রিলেটেড অন্যদের কে আকৃষ্ট করবে। হেডলাইনটি হবে সংক্ষিপ্ত, বর্ণনামূলক, প্রভাব বিস্তারকারী এবং অবশ্যই স্মার্ট।

No alt text provided for this image

বর্তমান এবং অতীতের পেশাগত অবস্থান উল্লেখ করুন

আপনার হেডলাইন দেখে অন্যরা আপনার প্রোফাইলে এসে প্রথমেই দেখতে চাইবে আপনি বর্তমানে আপনি আপনার পেশার কোন পদে বা পজিশনে আছেন এবিং অতীতে কোথায় ছিলেন। হেড লাইনে বর্ননামূলক কি অওার্ড দিয়ে প্রতিটা পজিশনের আপানি কী দায়িত্ব পালন করেছেন,ত আ উল্লেখ করুন সুন্দর ও স্পষ্ট ভাবে । তবে কখনোই প্রয়োজনের অতিরিক্ত কোন তথ্য উল্লেখ করবেন “Summary” সেকশনটি ভালোভাবে পুরণ করুন

এই সেকশনে আপনি আপনার সম্পর্কে লিখুন, কীভাবে আপনি অন্যদেরকে সাহায্য করতে পারবেন, তা উল্লেখ করুন। কারণ ভিসিটররা হেডিং এবং আপনার পজিশন দেখে এই অংশে এসে দেখবে আপনি কি জানেন বা বা তাদের কে কিভাবে সাহায্য করতে পারবেন। সুতরাং তাদের কথা মাথায় রেখে আপনি আপনার পারদর্শিতা এখানে উল্লেখ করুন। তবে হ্যাঁ, অবশ্যই কোন মিথ্যা তথ্য এখানে দেবেন না।না।

No alt text provided for this image

পুরণ করুন “Specialties” সেকশনটি

আপনার টার্গেটেড মার্কেটে গ্রাহক শ্রেনী কি ধরনের ধরনের কীওওার্ড সার্চ দিয়ে থাকে, সেগুলো র উপর বেশী ফোকাস করুন। এগুলো সার্চ দিয়েই গ্রাহক রা আপনার অভিজ্ঞতা যাচাই-বাছাই করবে, দেখবে আপনি কী ধরণের সার্ভিস প্রদান করবেন তাদের কে

Recommendations ও দিন এবং নিন

প্রোফাইলে recommendations থাকলে , তা আপনাকে অনেক বেশী গ্রহনযোগ্য করে তোলে অন্যদের কাছে। তাই আপনার কর্মস্থল থেকে বা অন্যান্যদের আকছ থেকে recommendations নিয়ে তা প্রোফাইলে প্রকাশ করুন। এতী পাওয়ার সব থেকে সহজতম উপায় হল আপনি অন্যদের কে আগে দিন, তারপর তাদের কে অনুরোধ করুন আপনাকে recommendation দেয়ার জন্য।।

No alt text provided for this image

Endorsements নিয়ে নিন

স্বীকৃতি দেবে আপনার পরিচিতজনরা। কোন বিষয়ে আপনি বেশী দক্ষ, তা এই Endorsements দেখেই ভিজিটররা বুঝতে পারবে, তাই এর গুরুত্ব কোন অংশেই কম নয়। সুতরাং এই ব্যাপারটির দিকে নজর দিন এবং তা কীভাবে বাড়ানো যায়, সেদিকে লক্ষ্য রাখুন। অন্যদের কে দিন এবং তাদের কে অনুরোধ করুন আপনাকে Endorsements দেয়ার জন্য পুরণ করুন।

No alt text provided for this image

“Interests” সেকশন

এই সেকশনের গ্রুপ্স এবং এসোসিয়েশন গুলো খুঁজে বের করুন এবং সেগুলোতে জয়েন করুন। তবে খেয়াল রাখবেন সেই গ্রুপ বা এসোসিয়েশন গুলো যেন আপনার পেশার সাথে রিলেটেড থাকে।

No alt text provided for this image

কীভাবে বাড়াবেন LinkedIn Network

প্রথমেই আপনার ব্যক্তিগত ইমেইল আইডি গুলো থেকে সার্চ দিয়ে যাদের কে পাওয়া যাচ্ছে, তাদের এড করুন।

No alt text provided for this image

নেটওয়ার্ক থেকে কন্টাঙ্কস এ গিয়ে এই পদ্ধতিতে তাদের খুঁজে বের করুন।

No alt text provided for this image
আপনার ক্লাস মেট ও কলিগরা, যারা লিঙ্কড ইন এ আছে, তাদের কে খুঁজে এড করুন।


ইনভাইটেশন পাঠান নিয়মিত, তবে যখনই আপনি কাওকে ইনভাইটেশন পাঠাবেন, অবশ্যই তার সাথে আপনার ব্যপারে ছোট করে হলেও একটি নোট পাঠাতে ভুলবেন না যেন।লিঙ্কড ইন এ কীভাবে একটিভ থাকবেন
এখানে প্রতিদিন বিভিন্ন পেশা’র এক্সপার্ট রা তাদের অভিজ্ঞতার আলোকে বিভিন্ন আর্টিকেল পোষ্ট করে থাকেন, সেগুলো পড়বেন, অবশ্যই শেয়ার করবেন এবং কমেন্ট করবেনধারাবাহিকভাবেআপনার স্ট্যাটাস আপডেট করুন :
খেয়াল করলে দেখবেন যে আপনি যখনই লিঙ্কডইনে লগই করবেন, দেখবেন তাদের কেই হোম ফিড এ দেখা যাচ্ছে, যারা নিয়মিত স্ট্যাটাস আপডেট করছেন। যারাই এক্টিভ থাকছেন, তাদের কেই হোম ফিডে দেখানো হয়। আর এটিই হচ্ছে সূক্ষ্ম কিন্তু শক্তিশালী উপায় সবার সাথে কানেক্টেড থাকার।
রেগুলLinkedIn Group Discussions এ অংশ গ্রহন করুন, বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিন।

ক্রমাগত সংযোগ তৈরি করুন

আপনার লিঙ্কডিন প্রোফাইল্টি publicly visible রাখুন, তাহলে অন্যদের সুবিধা হবে আপনাকে খুঁজে পেতে।

চোখ রাখুন ‘review whom you may know’ এবং People You May Know এর দিকে, এবং ইনভাইটেশন পাঠান সেই কানেকশনে গুলোতে।

আপানার কানেকশন এর সদস্যরা কোন কোন গ্রুপ এর মেম্বার, সেই গ্রুপ গুলোতে আপ্নিও যোগ দিন এবং এক্টিভ থাকুন group discussions এ অংশ নিয়ে, এতে করে আপনার দিকে অন্যদের দৃষ্টি পড়বে। শুধু তাই-ই নয় নিত্য নতুন লোকজনদের সাথে আপনি কানেক্টেড হতে পারবেন।

আরো একটি কাজ আপনাকে লাভবান করবে, তা হল আপনার নেটওার্কের মধ্যে এমন যারা আছেন, যারা কেও কাউকে চেনে না, কিন্তু তাদের মধ্যে যোগাযোগ হলে তারা লাভবান হবে। এমন লোকজন দের কে আপনি পরিচিত করিয়ে দেবেন, এতে করে আপনার প্রতি তাদের আস্থা এবং শ্রদ্ধাবোধ বেড়ে যাবে। আর এতে করে আপানার সুনাম ও খ্যাতি ছড়িয়ে পড়বে ধীরে ধীরে।

সুতরাং আজ থেকেলিঙ্কডইন এর প্রোফাইলটি নিয়মিত আপডেট করুন এবং আপনার ক্যারিয়ারের পথটি নতুন করে উন্মুক্ত করে দিন ভবিষ্যত সম্ভাবনার দিকে।ই আপনার র ন

1 Shares:

Leave a Reply

You May Also Like